Get Even More Visitors To Your Blog, Upgrade To A Business Listing >>

ঢাবি ভর্তি পরীক্ষায় ছাত্রলীগ নেতার এ কী ডিজিটাল জালিয়াতি!

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ডিজিটাল জালিয়াতির অভিযোগ আটক ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসম্পাদক মহিউদ্দিন রানা। ছবি : সংগৃহীত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রক্সি ও ডিজিটাল জালিয়াতির অভিযোগে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতাসহ ১৫ জনকে আটক করা হয়েছে। আজ শুক্রবার সকালে পরীক্ষা চলাকালে বিভিন্ন কেন্দ্র ও হল থেকে তাঁদের আটক করা হয়।

 এর মধ্যে ১২ জনকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে এক মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে। ছাত্রলীগ নেতাসহ তিনজনের বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় মামলা করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

সিআইডির সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (মিডিয়া) শারমিন জাহান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ২০-১০-২০১৭ তারিখে সিআইডির অর্গানাইজড ক্রাইম ইউনিটের একটি দল চ্যানেল ২৪ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সহায়তায় অমর একুশে হল থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত রসায়ন বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র আবদুল্লাহ আল মামুন ও শহীদুল্লাহ হল থেকে পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের স্নাতকোত্তর শ্রেণির শিক্ষার্থী মহিউদ্দিন রানাকে (ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসম্পাদক) গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ইলেকট্রনিক ডিভাইস গ্রহণ করে অসদুপায় অবলম্বনকারী ইশরাক আহমেদ রাফীকে ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুল থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘ ইউনিটের পরীক্ষা চলাকালে গ্রেপ্তার করা হয়।

তিনজনের কাছ থেকে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির কমিউনিকেশন ডিভাইস (মাস্টারকার্ড সদৃশ), কানে ব্যবহারের জন্য অতিক্ষুদ্র তারবিহীন যন্ত্র ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে। এই ক্ষুদ্র ইয়ারপিস কানে লাগিয়ে মানিব্যাগে ওই মাস্টারকার্ড রেখে দিলেই অপর প্রান্ত থেকে যোগাযোগ করা সম্ভব। এর সাহায্যে প্রশ্নের সেট কোড জেনে নিয়ে পরীক্ষার্থীদের উত্তর বলে দেওয়া হতো। প্রতি পরীক্ষার্থীর সঙ্গে তাদের চুক্তি ছিল দুই থেকে পাঁচ লাখ টাকা পর্যন্ত।

পরে ছাত্রলীগ নেতা মহিউদ্দিন রানা এবং ঢাবির শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ আল মামুন ও পরীক্ষার্থী ইশরাক আহমেদ রাফীর নামে শাহবাগ থানায় মামলা করে সিআইডি। অন্য ১২ জনকে এক মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দেন ঢাকা জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এ বছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটে এক হাজার ৬১০টি আসনের বিপরীতে ৯৮ হাজার ৫৪ জন শিক্ষার্থী আবেদন করেন। এই ইউনিটে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য এক হাজার ১৪৭টি, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের জন্য ৪১০টি ও মানবিক শাখার জন্য ৫৩টি আসন রয়েছে।

গত বছর ‘ঘ’ ইউনিটের পরীক্ষায় প্রতি আসনের বিপরীতে ৭০ জন ও ২০১৫ সালে ৬২ জন পরীক্ষা দিয়েছিলেন। ঢাবিতে ৫৩টি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে ৩৩টি স্কুল-কলেজসহ মোট ৮৬টি কেন্দ্রে আজ একযোগে এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।



This post first appeared on Amr Bangla - 24/7 Online News Portal, please read the originial post: here

Share the post

ঢাবি ভর্তি পরীক্ষায় ছাত্রলীগ নেতার এ কী ডিজিটাল জালিয়াতি!

×

Subscribe to Amr Bangla - 24/7 Online News Portal

Get updates delivered right to your inbox!

Thank you for your subscription

×