Get Even More Visitors To Your Blog, Upgrade To A Business Listing >>

Bangla Choti আমি ভালো মেয়ে নই 2

Bangla Choti ও বলেছিল, ছেলেরা শরীর ছাড়া প্রেম করতে পারেনা।ভালবেসে দেখ ঠকবি না। রাজেশ আমায় ঠকায় নি।ও দু এক দিন এর মধ্যে আমাকে প্রেম নিবেদন করেছিল। আমি হ্যাঁ বলেছিলাম। সত্যি কি প্রেমে পড়েছিলাম? না একেবারেই না। কিন্তু বুঝেছিলাম আজ না বললে ওর কাছ থেকে আমার র কোনো সাহায্য পাওয়া হবে না। তবে হ্যাঁ আমার ইচ্ছা ছিল দেখার ছেলেরা কিভাবে ভালোবাসে? প্রেমে না পড়লেও এটা মিথ্যা বলা হবে যে আমার ওর প্রতি কোনও আকর্ষণ ছিল না। অপরিণত বয়সে তো এই সব হয়েই থাকে। ও ই প্রথম আমাকে বাগান এ নিয়ে গেছিল। সব প্রেমিক প্রেমিকারা কপত কপতির মতন বসে ছিল। খোলা জায়গা। গল্প করতে করতে মনে নেই কখন আমাকে ওর বাহুপাশে বেধে ফেলেছিল। আমি যে ছাড়ানো র খুব একটা চেষ্টা করছিলাম তাও নয়ই। সেই খোলা জায়গাতে বসেই আমার ঠোঁটে ওর নিজের ঠোঁট চিপে ধরেছিল। ওর মুখের গন্ধ প্রথম বার উপভোগ করেছিলাম মুখ দিয়ে। অনুভব করেছিলাম ওর শরীরের উত্তাপ।চাইছিলাম ব্যাপারটা আরও খানিক্ষন চলুক। কিন্তু বাধ সাধল বৃষ্টি। আমরা ভেজা গা নিয়ে পালিয়ে এসেছিলাম।
এক শনিবার গেলাম আবার ওর সাথে দেখা করতে। ও যা চাইছিল আমি মেনে নিচ্ছিলাম। সেদিন কাকু কাকিমা বাড়ি ছিলেন না। রত্না ও ছিল না। আমাকে বলেছিল রত্না র একটা ড্রেস পরতে। আমার ড্রেস নাকি খুব বেরং। যা পরতে দিয়েছিল, তেমন কাপড় আমি কোনও দিন ও পরিনি। আমার আর রত্নার শারীরিক গঠন ছিল মোটামুটি একই রকম। একটা ভীষণ আটকে থাকা টপ র মিনি স্কার্ট পরতে দিয়েছিল। আমি প্রথমে ওর কাপড় পরার পক্ষপাতী ছিলাম না। মনে হচ্ছিল অন্যের জিনিষ নিজের করে নিচ্ছি। কিন্তু রাজেশ আমাকে বলেছিল যে রত্না আমার ই জন্য এই গুলো বার করে রেখে গেছে। ড্রেস বদলে সামনে আসার পর নিজের ভীষণ লজ্জা হচ্ছিল।নিজেকে খুব নোংরা র সস্তা মনে হচ্ছিল। রত্না কে এইসব পোশাক এ মানায়। আমাকে একদম মানাচ্ছে না। রত্নার ত্বক কত মসৃণ। আমার হাত পা সব ই লোম এ ভরতি। রাজেশ বুঝেছিল আমার মনের ভাব। আমাকে রত্নার বাথরুম এ নিয়ে গেছিল। সেই প্রথম আমি কোনও বড়লোক এর মেয়ের বাথরুম দেখলাম। কি নেই সেখানে। সেই প্রথম আমার হাতকাটা জামা পরা। আয়নায় নিজেকে দেখে নিজেই লজ্জা পেয়েগিয়েছিলাম। আমার মাঝারি আকারের স্তন যেন ঠিকরে বেরতে চাইছে। ও আমাকে বলেছিল যে এতদিন শুধু তোমার ঘামে ভেজা জাইগা গুলোই দেখেছি। আজ পরিস্কার করে দেখব কেমন তুমি। আমার ডান হাত টা মাথার ওপর তুলে ধরেছিল। ডান বগল এ মাখিয়ে দিয়েছিল সাবান। কামিয়ে মসৃণ করে দিয়েছিল বাহুমুল এর ত্বক। নিজের চোখ কে বিশ্বাস করতে পারছিলাম না। আমার বগল এত সুন্দর? ও আমাকে বলেছিল ওর আমার নগ্ন বগল দেখার বহু দিন এর শখ। কিন্তু তুমি এমন সব জামা কাপড় পড় তাতে হাত ই দেখা যায় না তো র বগল। জিভ ও লাগিয়েল কি ও ই নোংরা জাইগাই? হ্যাঁ লাগিয়েছিল। তখন কার সময় অতশত সুগন্ধি স্প্রে মাখার চল ছিল না। বাজে একটা ঘেমো গন্ধ নাকে আসাতে নিজেই লজ্জা পেলাম। কিন্তু সেই লজ্জা নিজের মনেই রেখেছিলাম। আমি ওকে বলেছিলাম এতসব জানলে কোথাথেকে? বলেছিল, আমরা তো র বাইরে বেশি কিছু দেখতে পাই না, তাই যতটা তোমরা দেখাও তাতেই খুশি থাকতে হয়। আমি বুঝেছিলাম রত্না রেগুলার শেভ করে। তাই এত সুন্দর। ও আমার মনের ভাব বুঝে বলেছিল। হ্যাঁ তোমার বন্ধু রেগুলার করে। আমার মা ও স্লিভলেস পরেন। উনিও করেন। কারুর শরীর এ একফোঁটা লোম দেখবে না। এটা নোংরা লাগে। বাকিটা র ওকে করতে দেইনি। ও বেরিয়ে গেল। আমি আমার হাত পা বাহুমূল সবকিছু নিজের কামিয়ে নিয়েছিলাম। এ যেন এক বিচিত্র অভিজ্ঞতা। বান্ধবির বাথরুম এ দাঁড়িয়ে ওর ই শেভিং সেট দিয়ে নিজেকে জীবন এ প্রথম বার নির্লোম করলাম। মানে যতটা করা যায় র কি। বুঝলাম শুধু স্তন নয়, আমাদের বগল ও ছেলেদের জন্য ব্রমহাস্ত্রের কাজ করে। মিনি স্কার্ট র স্লিভলেস টপ পড়ে যখন বেরলাম মনে হল যেন গোটা শরীর টাই নগ্ন। ওর বাইক এ চরে যাওয়ার সময় বার বার অবাদ্ধ পাতলা স্কার্ট টা কে হাত দিয়ে চেপে ধরছিলাম। রাস্তার কত লোক যে আমার নগ্ন ঊরু দেখেছে কে জানে? কিছু লোক কি আমার স্কার্ট এর নিচে পড়ে থাকা বেগুনী রঙের প্যানটি ও দেখে ফেলেছে। দেখে থাকলে দেখুক। আমি তাদের টা খাই না বা পরিও না। কার কি এসে গেল।



This post first appeared on Bangla Choti বাংলা চটি, please read the originial post: here

Share the post

Bangla Choti আমি ভালো মেয়ে নই 2

×

Subscribe to Bangla Choti বাংলা চটি

Get updates delivered right to your inbox!

Thank you for your subscription

×